শীতকালীন পরিচর্যায় বাদামের গুঁড়া

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:২৮ পিএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

নিয়মিত এক মুঠো বাদাম খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয় সবাইকেই। বাদামে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও উপকারি তেল শুধু স্বাস্থ্যের জন্যেই নয়, ত্বকের জন্যেও সমানভাবে উপকারিতা বহন করে। বাদাম যেহেতু সরাসরি ত্বকে ব্যবহার করা সম্ভব নয়, বাদামের পাউডার কিংবা বাদাম গুঁড়া দিয়ে বিভিন্নভাবে পেস্ট তৈরি করে ব্যবহার করতে হবে।

ত্বকের শুষ্কভাব দূর করে

শীতকালে ত্বক শুষ্ক হয়ে ওঠার সমস্যা বেড়ে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। সেক্ষেত্রে প্রতিদিন এক মুঠো বাদাম খাওয়ার পাশাপাশি বাদামের তৈরি ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে হবে। ফেসপ্যাকটি তৈরিতে প্রয়োজন হবে এক চা চামচ পরিমাণ গুঁড়া বাদাম, এক চা চামচ ওটস ও এক-দুই টেবিল চামচ দুধ। এই তিনটি উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করতে হবে। পেস্টটি মুখে ম্যাসাজ করে ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করে, মুখ ভালভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে অন্তত ২-৩ দিন বাদামের ব্যবহারে ত্বকের শুষ্কভাব দূর হবে এবং ত্বক তার প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা পাবে।

ত্বকের তৈলাক্তভাব দূর হবে

ত্বকের ভেতরে থাকা সিবেসিয়াল গ্ল্যান্ড থেকে বেশি মাত্রায় তেলের নিঃসরণ হলে ত্বক প্রয়োজনের চাইতে বেশি তৈলাক্ত হয়ে যায়। স্বাভাবিকভাবেই তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ সহ নানান ধরণের সমস্যা দেখা দেয়। শীতকালীন সময়ে যদিও ত্বক শুষ্ক হয়ে ওঠে, তারপরেও তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যাটি পিছ ছাড়ে না অনেকের। সেক্ষেত্রে বাদাম ব্যবহার করা হবে বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ বাদাম একই সঙ্গে ত্বকের বাড়তি তেলের নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করবে এবং ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করবে। তৈলাক্ততা দূর করার জন্য এক মুঠো বাদাম গুঁড়া পুরো রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরদিন সকালে পানি ছেঁকে বাদামের সঙ্গে পরিমাণ মতো দই মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। পেস্টটি মুখে ম্যাসাজ করে ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করে কুসুম গরম পানিতে মুখ পরিষ্কার করে নিতে হবে। ত্বকের তৈলাক্ততার সমস্যার উপর নির্ভর করে সপ্তাহে ৩-৪ দিন এই পেস্ট ব্যবহার করতে হবে।

দূর করে ত্বকের দাগ

ত্বকে ব্রণের দাগ বসে যাওয়া খুবই বাজে একটি ব্যাপার। ত্বকের দাগ দূর করতে এক চা চামচ মুলতানি মাটির সঙ্গে এক চা চামচ বাদাম গুঁড়া ও এক টেবিল চামচ গোলাপজল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। পেস্টটি মুখে ম্যাসাজ করে সম্পূর্ণ শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানিতে মুখ ভালোভাবে ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার ব্যাবহার করতে হবে। একদিন পর পর এই পেস্ট ব্যবহারে এক মাসের মাঝেই ত্বকের দাগ কমে যাওয়া শুরু করবে।

ত্বকের বলিরেখা প্রতিরোধ করতে

প্রধানত বাদাম ত্বকের আর্দ্রতাভাব ধরে রাখে, যা ত্বককে শুষ্ক হতে দেয় না। ফলে ত্বকের চামড়া সহজে কুঁচকে যায় না। এছাড়া বাদামে থাক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ত্বকের কোলাজেন তৈরিতে অবদাম রাখে। ফলে ত্বকে সহজে বলিরেখা দেখা দেয় না। বলিরেখা প্রতিরোধের জন্য এক চা চামচ বাদাম গুঁড়ার সঙ্গে সমপরিমাণে অলিভ অয়েল ও দই মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। ২০-৩০ মিনিট পেস্টটি মুখে রেখে এরপর কুসুম গরম পানিতে মুখ ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন :