শিঙ্গনাপুর – যে গ্রামে দরজা নেই কোন ঘরের

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:৪৮ পিএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

ঘরে জিনিসপত্র, টাকা-পয়সা, গহনাগাটি নিরাপদ রাখতে মানুষ কত কিছুই না করে। বড় বড় তালা, আধুনিক লক থাকা সত্ত্বেও গোটা বিশ্বে চুরি ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। অথচ ভারতের মহারাষ্ট্রে শনি শিঙ্গনাপুর নামে একটি গ্রাম কোন ঘরে তালা দেওয়ার ব্যবস্থাই নেই।

দরজা যে শুধু বাড়ির ঘরগুলোতে নেই তা নয়। দোকান ঘরেও দরজা নেই। সব সময় গ্রামের বাড়িগুলো কিংবা দোকানগুলো উন্মুক্ত থাকে। টাকা-পয়সা, জিনিসপত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে ঘরের ভেতর। তারপরও গ্রামের কেউ অনিরাপদ বোধ করে না।

শনি শিঙ্গনাপুর গ্রামে প্রায় ৫ হাজার মানুষের বসবাস। তারা বিশ্বাস করেন, স্বয়ং শনি দেব তাদের গ্রাম পাহারা দেন। এ কারণে এ গ্রামে কারও বাড়িতে ঘরের দরজা বা তালার প্রয়োজন নেই।

প্রায় তিনশ’ বছর ধরে গ্রামে এই ব্যবস্থা চলে আসছে। পূর্বপুরুষের সেই বিশ্বাস এখনও ধরে রেখেছে গ্রামবাসী। তবে ঘরের মধ্যে যাতে কোনো কুকুর বা অন্য প্রাণি ঢুকতে না পারে সেজন্য ঘরে দরজার জায়গায় কাঠের প্যানেল দেন তারা। কিন্তু সেটা স্থায়ী কিছু নয়।

গ্রামে রয়েছে ইউকো ব্যাঙ্কের একটি শাখা। সেই ব্যাংক ভবনটিতেও তালা লাগানোর ব্যবস্থা নেই ।

তবে শহরের আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে এই গ্রামেও। এখানকার অনেকে তাই বহু বছরের পুরনো এই রীতির সংস্কার চান। বেশিরভাগ গ্রামবাসি অবশ্য পুরনো রীতির পক্ষে। তারা বিশ্বাস করেন শনি দেবতাই তাদের সব ধরনের বিপদ থেকে রক্ষা করবেন।

প্রিয় পাঠক, আপনিও হতে পারেন আওয়ার বাংলা অনলাইনের একজন অনলাইন প্রতিনিধি। লাইফস্টাইল বিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুনঃ [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :