ভোটের আগে ৬ ডিগ্রি তাপমাত্রা বাংলাদেশে

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:০৫ এএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮

ঋতুচক্রে শীতকাল আসতে আরো প্রায় দু’সপ্তাহ বাকি। তবে দেশের উত্তরাঞ্চলে শীত অনুভূত হচ্ছে আরো মাসখানেক আগে থেকেই। উত্তরাঞ্চলে শীত দিনদিন তীব্র হলেও ঢাকাসহ মধ্যাঞ্চলে তেমন মাত্রায় নেই। তবে ডিসেম্বরের প্রথম দিন থেকেই শীতের অনুভূতি পাচ্ছেন রাজধানীবাসী।

এরইমধ্যে রোববার (০২ ডিসেম্বর) ঢাকায় মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ( ১৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস) রেকর্ড করা হয়েছে।

এমন অবস্থার মধ্যে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ শীতের তীব্রতা আরো বেড়ে যাবে। এ মাসের শেষে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদের ভোটের আগে শীতের তীব্রতার মধ্যেই হবে ‘মাঠে-ঘাটে ভোটযুদ্ধ’। ফলে শীতকে মোকাবেলা করেই ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটতে হবে প্রার্থীদের।

আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাস দিতে রোববার (০২ ডিসেম্বর) আগারগাঁওয়ে অধিদফতরের ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রে বসেছিল বিশেষজ্ঞ কমিটির সভা। এতে নভেম্বর মাসের বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করেন বিশেষজ্ঞরা।
সভা শেষে অধিদপ্তরের পরিচালক এবং বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান সামসুদ্দিন আহমেদ জানান, ডিসেম্বর মাসের শেষ নাগাদ দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এক থেকে দু’টি মৃদু (৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) অথবা মাঝারি (৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

‘এ মাসের প্রথমার্ধে রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা বেশি থাকতে পারে। কিন্তু মাসের শেষ দিকে রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা কম থাকতে পারে।’

শীতের তীব্রতা বৃদ্ধির পাশাপাশি কুয়াশার মাত্রাও বাড়তে পারে এই ডিসেম্বরে।

সামসুদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন, ডিসেম্বর মাসের শেষে রাতের শেষ দিক থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের উত্তরাঞ্চল ও নদ-নদী অববাহিকায় ঘন অথবা মাঝারি কুয়াশা এবং দেশের অন্যত্র মাঝারি অথবা হালকা ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বনিম্ন ১১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়। এছাড়া কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ১২.২ ডিগ্রি, দিনাজপুরে ১২.৪ ডিগ্রি, সৈয়দপুরে ১২.৫ ডিগ্রি।

বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে রাজশাহীতে ১৩.৮ ডিগ্রি, রংপুরে ১৪.৮ ডিগ্রি, বরিশালে ১৪.৩ ডিগ্রি, ময়মনসিংহে ১৪.৫ ডিগ্রি, সিলেটে ১৫.৮ ডিগ্রি, খুলনায় ১৬ ডিগ্রি, চট্টগ্রামে ১৭ ডিগ্রি এবং ঢাকায় ১৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ আব্দুল বারেক জানিয়েছেন, রোববার ঢাকায় তাপমাত্রা ছিল ১৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা এই মৌসুমের সর্বনিম্ন।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, ডিসেম্বর মাসে দেশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হতে পারে। এ মাসে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ থেকে নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকবে। সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে। শেষ রাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

নভেম্বর মাসের তথ্য বিশ্লেষণ করে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, নভেম্বরে সারাদেশে স্বাভাবিক অপেক্ষা কম (-৮৭.৯ শতাংশ) শতাংশ বৃষ্টিপাত হয়েছে। এ মাসে আন্দামান সাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ থেকে পরবর্তীতে বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়ের সৃষ্টি হয়। সেটি ভারতের তামিলনাড়ু উপকূল অতিক্রম করে তাণ্ডব চালিয়ে বহু মানুষের প্রাণহানি ঘটায়।

আবহাওয়া অফিস আরো জানান, গত ৫ নভেম্বর দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল যশোরে। আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিলো শ্রীমঙ্গলে (২৮ নভেম্বর)। নভেম্বর মাসে বৃষ্টিপাত, নিম্নচাপ, কৃষি আবহাওয়া এবং দেশের নদ-নদীর অবস্থা পূর্বাভাসের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ ছিলো।

আর ডিসেম্বরে গড় সূর্যকিরণ ৫-৬ ঘণ্টা থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

আপনার মতামত লিখুন :