বৈশাখের সাজে হয়ে উঠুন খাঁটি বাঙালি নারী

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১০:৫৭ এএম, ১২ এপ্রিল ২০১৯

এই আর একটা রাত, তারপরই সবাই প্রাণ খুলে গেয়ে উঠবেন- ‘আইলো আইলো আইলো রে রঙ্গে ভরা বৈশাখ আবার আইলো রে’। সত্যিই বৈশাখের প্রথম দিনটি প্রত্যেক বাঙালিদের জন্যই রঙিন একটি দিন। বৈশাখকে বরণ করে নিতে এরই মধ্যে সব আয়োজন গুছিয়ে নিয়েছেন নিশ্চয়ই। কোন শাড়ি পরবেন, চুলের সাজ কেমন হবে, গয়না বাছাইয়ের খুঁটিনাটি— সবকিছু নিয়েই চলুন শেষ সময়ে একটু আলোচনা হয়ে যাক।

শাড়ি ছাড়া কি আর চলে!

যারা শাড়ি ভালোবাসেন তাদের কাছে এমন একটি দিনে শাড়ির বিকল্প আর কিছুই হয় না। একটা সময় বৈশাখ বলতেই লাল পাড়ের সাদা শাড়িকেই বুঝতো সবাই। এখনও এই রীতি মেনে লাল-সাদাতে নিজেকে সাজান অনেকেই। বাড়তি সংযোজন হিসেবে যোগ হয়েছে নীল, গোলাপি, সবুজ, মেরুন ইত্যাদি রঙও।

এক রঙা শাড়ি যেমন চলছে তেমনি ব্লক, হ্যান্ড পেইন্ট, স্ক্রিন প্রিন্টের শাড়িও রয়েছে পছন্দের তালিকায়। শাড়ি যেমনই হোক তা পরে যেন স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন সেদিকে খেয়াল রাখুন। কটন, এন্ডিকটন, হ্যান্ডলুম, ভয়েল, লিলেন ইত্যাদি কাপড়ের শাড়ি পরতে পারেন।

যারা শাড়ি পরতে পছন্দ করেন না বা সামলে রাখতে পারবেন না মনে করেন তারা পোশাকের তালিকায় রাখতে পারেন সালোয়ার কামিজ কিংবা কুর্তি।

হাতে চাই রেশমি চুড়ি-

বৈশাখ মানেই বাঙালিয়ানা, তাই শাড়ির সঙ্গে মিলিয়ে চাই হাত ভর্তি কাঁচের চুড়ি। কেউ পছন্দ করেন একরঙা প্লেইন চুড়ি, কেউ পছন্দ করেন খাঁজ কাটা রেশমি চুড়ি। পছন্দ যাই হোক, শাড়ি বা কুর্তির সঙ্গে মিলিয়ে চুড়ি পরুন। পোশাকে রয়েছে এমন দুই কিংবা তিন রঙের চুড়িতে সাজান হাত। পরতে পারেন রেশমি সুতা জড়ানো চুড়িও।

মেকআপে রাখুন স্নিগ্ধতা-

শাড়ি আর চুড়িতে বাঙালি নারীরা এমনি হয়ে ওঠেন অপরূপা। তাই বাড়তি মেকআপের আর প্রয়োজন হয় না। এরপরও মেকআপ করতে চাইলে তাতে রাখুন স্নিগ্ধতা। ভারী সাজের চাইতে এদিনে হালকা সাজই বেশি মানানসই হবে। চোখের শ্যাডোতে রাখতে পারেন হালকা ব্রাউনিশ বা গ্রিনিশ সাজ। চোখে ভরাট করে কাজও ও আইলাইনার লাগান, এরপর আইল্যাশ। লিপস্টিকের ক্ষেত্রে লাল, ম্যাজেন্টা, মেরুন জাতীয় রংগুলোর প্রাধান্য রয়েছে বেশি।

চুলে ছেড়ে রাখবেন না বেঁধে?

এই প্রশ্ন সবার মাথাতেই অন্তত একবার আসে। বৈশাখে আবহাওয়া যেহেতু খানিকটা গরম থাকবে তাই চুল পুরোপুরি না ছেড়ে কিছুটা বেঁধে নিতে পারেন। লম্বা চুল হলে করতে পারেন বেণী। চাইলে একপাশে সিঁথি কেটে খোঁপাও বাঁধতে পারেন। চুল যেভাবেই রাখুন, সঙ্গে তাজা ফুল জড়াতে ভুলবেন না যেন। গাজরা, কাঠবেলি, গোলাপ কিংবা জারবেরা— পছন্দ অনুযায়ী ফুল যোগ করুন বৈশাখের চুলের সাজে।

এখন বাজারে প্লাস্টিক ও কাপড়ের ফুল ও খোঁপার ব্যান্ডও পাওয়া যায়। চাইলে সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। যারা হিজাব পরেন, তারা চুল বেঁধে মানানসই হিজাব যোগ করুন বৈশাখের সাজে।

গয়নায় থাকুক ঐতিহ্যের ছোঁয়া-

বৈশাখের শাড়ির সাথে মিলিয়ে পরুন মাটির কিংবা কাঠের গয়না। এর পাশাপাশি অনেকেই রূপা, মুক্তা, তামার গয়নাও পরে থাকেন। কাঠ, পুঁতি ইত্যাদির বিডসের গয়নাই বৈশাখের জন্য মানানসই। যেমন গয়না পরে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন, তেমনই পরুন। চাইলে ফুলের মালা দিয়েও সাজাতে পারেন নিজেকে।

কিছু বাদ পড়লো না তো?

বৈশাখের সাজে পূর্ণতা আনতে কপালে পরতে পারেন আলপনা টিপ। আলতা ভালোবাসলে পায়ে বা হাতে আলতা লাগান। সাজের অংশ হিসেবে রাখতে পারেন নূপুর কিংবা বিছা।

তবে আর কী, বৈশাখের সাজে হয়ে উঠুন অপরূপা।

প্রিয় পাঠক, আপনিও হতে পারেন আওয়ার বাংলা অনলাইনের একজন অনলাইন প্রতিনিধি। লাইফস্টাইল বিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুনঃ [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :