নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যবহৃত হচ্ছে ডিজিটাল মাধ্যম

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৪৬ এএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ক্ষণ গণনার ঘড়ি সময়কে কাছে নিয়ে আসছে খুব দ্রুত। প্রতীক বরাদ্ধের পর এরইমধ্যে আনুষ্ঠানিক প্রচার প্রচারণায় নেমেছে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীরা।

প্রচারণার প্রচলিত ধারণার বাইরে এবারের নির্বাচনে গুরুত্ব পাচ্ছে ডিজিটাল নির্বাচনী প্রচারণা। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে অর্থ খরচ করে চালানো হচ্ছে ক্যাম্পেইন।

নিজস্ব ওয়েবসাইট, ই-মেইল, ক্ষুদেবার্তার (এসএমএস) পাশাপাশি ফেসবুক ও টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং ভিডিও স্ট্রিমিং সাইট ইউটিউবে চালানো হচ্ছে প্রচারণা। আর এসব প্রচারণায় নিজেদের দল এবং প্রার্থীদের ইতিবাচক দিক তুলে ধরার পাশাপাশি বিরোধীমতের দল ও প্রার্থীদের নেতিবাচক দিকও তুলে ধরে ভোটারদের আকর্ষণের চেষ্টা করা হচ্ছে।

তবে প্রচারণায় সবথেকে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে ফেসবুক। ৩০ ডিসেম্বরকে উদ্দেশ্য করে ফেসবুকে ইভেন্ট পেজও খুলছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, প্রার্থী ও তাদের কর্মী-সমর্থকেরা।

আওয়ামী লীগ

ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নির্বাচনী আনুষ্ঠানিকতার বেশ আগে থেকেই ডিজিটাল মাধ্যমগুলোতে প্রচারণা চালিয়ে আসছে। বিশেষ করে গত নভেম্বর মাস থেকে #ThankYouPM নামে টিভি বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি প্রচারণা চালানো হচ্ছে ফেসবুক ও টুইটারে। ফেসবুকে দলটির ভেরিফাইড পেজ থেকে নিয়মিত বুস্টিং এর মাধ্যমেও প্রচারণা চালাচ্ছে ২০০৯ সাল থেকে ক্ষমতায় থাকা দলটি।

প্রচারণাকে আকর্ষণীয় করে তুলতে স্থির চিত্রের পাশাপাশি দলটির পক্ষ থেকে তৈরি করা হচ্ছে টিভি বিজ্ঞাপন, মিউজিক ভিডিও এবং ডকুমেন্টারি। আর এসবে অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন অঙ্গনের খ্যাতিমান ব্যক্তিবর্গ।

নির্বাচনে ডিজিটাল প্রচারণার ইতিবাচক ফলাফল পেতে আশাবাদী আওয়ামী লীগ। দলটির প্রচার সম্পাদক ড. হাসান মাহবুব আওয়ারবাংলাকে বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আরও আগে থেকেই ডিজিটাল মাধ্যমে আমরা প্রচার প্রচারণা চালিয়ে আসছি। আগামীতেও এটিকে অব্যাহত রাখা হবে। এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মানুষ ব্যাপকভাবে ব্যবহার করছে।

তাই এখানে আমরা আমাদের ১০ বছরের নানান উন্নয়ন সবার সামনে তুলে ধরছি। এটাকে যদি অব্যাহত রাখতে হয় সেজন্য এ প্রচারণা চালাচ্ছি। দিন দিন এটিকে আরও জোরদার করা হবে। যাদের বিবেক, বুদ্ধি-বিবেচনা আছে তারা যদি একটু ভাবে তাহলে অবশ্যই শেখ হাসিনার পক্ষে আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দেবে। আমরা সেই বিষয়টিই প্রচার করছি।

বিকল্পধারা

নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘প্ল্যান-বি’ নামক ভিডিও প্রকাশ করে বেশ আলোড়ন তৈরি করে রাজনৈতিক দল বিকল্পধারা। দলের তরুণ নেতা মাহী বি. চৌধুরী এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীর দু’টি আলাদা আলাদা ভিডিও মানুষের আলোচনায় থাকে বেশ কয়েকদিন। আসন্ন নির্বাচনে মহাজোটের অন্তর্ভুক্ত হয়ে নৌকা মার্কা নিয়ে নির্বাচন করবে এ দল। মাহী বি. চৌধুরীর ব্যক্তিগত ভেরিফাইড পেজে ইতিমধ্যে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট চারটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে।

ফেসবুকের পাশাপাশি ইউটিউবেও বেশ কয়েকটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে বিকল্পধারার।

বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট

মাঠের রাজনীতিতে এখনও সেভাবে সুবিধা করতে না পারলেও ভার্চুয়্যাল জগতে আওয়ামী লীগকে বেশ ভালোই টেক্কা দিচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। ভার্চুয়্যাল ওয়ার্ল্ডে নিজেদের কার্যক্রমের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ খুব একটা ‘বাধা’ তৈরি করতে পারবে না বলে মনে করছেন দলের প্রচারণার দায়িত্বে থাকা নেতারা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণা চালানোর জন্য নিজেদের ফেরিফাইড ফেসবুক পেজের পাশাপাশি কমিউনিটি ভিত্তিক বেশকিছু গ্রুপ খোলা হয়েছে দলটির কর্মী-সমর্থকদের পক্ষ থেকে। এগুলোর মধ্যে এখন পর্যন্ত সবথেকে বেশি আলোচনায় এসেছে ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-সোশ্যাল মিডিয়া-BNP-SM’ নামের ফেসবুক গ্রুপটি। প্রায় ২০ লাখ সদস্যের এ গ্রুপে নিয়মিত পোস্ট করা হয় দলটির পক্ষে আর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিপক্ষে।

এর বাইরেও ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচারণার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকেও। সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের মতো ‘ডিজিটাল প্রচারণা’ চালাতে জোটের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান ঐক্যফ্রন্ট নেতা এবং নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। প্রয়োজনে আওয়ামী লীগের মতো নাটক, সিনেমা এবং ডকুমেন্টারি তৈরির প্রস্তাব করেন তিনি।

রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি ব্যক্তি উদ্যোগেও ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচারণা চালাচ্ছেন আলোচিত প্রার্থীরা। তরুণ রাজনীতিক এবং প্রার্থীদের মধ্যে এ প্রবণতা এখন পর্যন্ত সবথেকে বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

ইউটিউব এবং ফেসবুকে ‘স্টে উইথ পার্থ’ শিরোনামে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান এবং ঢাকা-১৭ আসনের প্রার্থী আন্দালিভ রহমান পার্থ।

পার্থর মতো ফেসবুকে নির্বাচনী প্রচারণায় সক্রিয় আছেন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির সভাপতি (এনডিপি) এবং ঢাকা-৬ আসনের প্রার্থী ববি হাজ্জাজ। মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) নিজের পেজ থেকে লাইভে আসেন ববি। নির্বাচনকালীন সময়ে নিয়মিত লাইভ করে যাবেন বলেও আওয়ারবাংলাকে জানান তিনি।

প্রিয় পাঠক, আপনিও হতে পারেন আওয়ার বাংলা অনলাইনের একজন সক্রিয় অনলাইন প্রতিনিধি। আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া ঘটনা, অপরাধ, সংবাদ নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুনঃ [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :