জার্মানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৩৬ এএম, ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

রুশ পরিচালিত নর্ড স্ট্রিম-২ গ্যাস পাইপলাইন নির্মাণ প্রকল্পে সম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো অচিরেই নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়বে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জার্মানিতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিক গ্রিনেল।

পাইপলাইনটির সাহায্যে বাল্টিক সাগরের তলদেশ দিয়ে জার্মানিতে সরাসরি গ্যাস সরবরাহ করা হবে। জার্মানির বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান এই প্রকল্পের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে। রবিবার (১৩ জানুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের একজন সিনিয়র কর্মকর্তার বরাতে এক প্রতিবেদনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে লন্ডন ভিত্তিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগে রাশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যিক ও সামরিক সম্পর্ক রাখায় ভারত, চীন ও ইরানসহ বিশ্বের বেশ কিছু দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা বা নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন।

রুশ জ্বালানির ওপর নির্ভরশীল দেশ জার্মানিকে মস্কোর হাতে বন্দি বলে অভিযোগ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘জার্মানিকে অবশ্যই ১১ বিলিয়ন ডলার মূলের গ্যাস পাইপলাইনের কাজকে এখনই বন্ধ করে দেওয়া উচিত।’

পাইপলাইনটির মাধ্যমে বাল্টিক সাগরের নিচ দিয়ে জার্মানি সরাসরি গ্যাস সরবরাহ করতে পারবে। যেখানে পরবর্তী সময়ে তাদের মিত্র দেশগুলো সংযুক্ত হতে পারবে। ফলে ইউক্রেন একটি বড় অঙ্কের গ্যাস ট্রানজিট ফি পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়ে পড়বে, যা দেশটি এখন পাচ্ছে।

জার্মানিতে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসের এক মুখপাত্র বলছেন, ‘জার্মানিস্থ যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত রিচার্ড গ্রেনেল ইতোমধ্যে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দিয়ে বিষয়টি অবহিত করেছেন।’

দূতাবাসের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘রুশ জ্বালানি সরবরাহকারী পাইপলাইনে কাজ করা যে কোনো প্রতিষ্ঠান কাউন্টারিং আমেরিকাস অ্যাডভার্সারিজ থ্রো স্যাংশনস অ্যাক্টের (সিএএটিএসএ) আওতায় যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়বে বলে চিঠির মাধ্যমে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

আপনার মতামত লিখুন :