চিরকুট লিখে মাস্টার্সের ছাত্রীর আত্মহত্যা

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:২৫ এএম, ০৭ জানুয়ারি ২০১৯

জয়পুরহাট সদর উপজেলায় শাপলা খাতুন (২৪) নামে এক কলেজ ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার (৬ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার শান্তিনগর এলাকায় একটি ছাত্রীনিবাসে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত শাপলা খাতুন সদর উপজেলার চকদাদড়ার জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী ও ক্ষেতলাল উপজেলার নওটিকা গ্রামের আব্দুল গফুরের মেয়ে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা জানায়, জয়পুরহাট সরকারি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্সে অধ্যয়নরত ছাত্রী শাপলা খাতুন দুপুর ৩টার পর খাওয়া-দাওয়া শেষে তার রুমের দরজা-জানালা বন্ধ করে ঘুমাতে যায়। ছাত্রীনিবাসের অন্য ছাত্রী মুক্তা ও তাবাচ্ছুম রাত ৮ টার দিকে রুমে তাকে ডাকাডাকি করে কোনো সাড়া না পাওয়ায় আশপাশের লোকজনকে ডাকে। পরে ঘরের দরজা ভেঙে তাকে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলুন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে পুলিশ এসে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

নিহত শাপলা খাতুনের মৃত্যুর আগে তার পায়ের কাছে একটি প্যাডে লেখা চিঠি পাওয়া যায়। সেখানে লেখা আছে “আমার মৃত্যুর জন্য আমি নিজেই দায়ী। আমার ক্যানসারর হয়েছে তাই আমি আমার জীবনটা কার সাথে জড়াতে চাচ্ছিলাম না। আমি আমার জীবনটা নিজের হাতে শেষ করে গেলাম এর জন্য কেউ দায়ী না।” – শাপলা

এ ঘটনায় তার ছাত্রীনিবাসের সহপাঠিরা জানায়, তার নিয়মিত মাথা ব্যাথা হতো। হয়তো সেই কারণে সে আত্মহত্যা করেছে।

এ ব্যাপারে জয়পুরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে তদন্ত চলছে। তদন্তের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রিয় পাঠক, আপনিও হতে পারেন আওয়ার বাংলা অনলাইনের একজন সক্রিয় অনলাইন প্রতিনিধি। আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া ঘটনা, অপরাধ, সংবাদ নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুনঃ [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :