বার বার আঘাত হানবে কালবৈশাখী ঝড়

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৫৩ এএম, ০৬ এপ্রিল ২০১৯

অন্য বছরের তুলনায় এ বছর কালবৈশাখী ঝড় বেশি আঘাত হানবে বলে আভাস দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। একই সময় সমান্তরাল ধারায় শিলাবৃষ্টি, কালবৈশাখী ও বজ্রঝড় আঘাত হানতে পারে।

এপ্রিল থেকে মে মাস পর্যন্ত ছয়টি নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়েছে যার মধ্যে দুটি তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। জুন মাসে বর্ষা শুরু হলেও মাঝখানের দিনগুলোতে দেশের কোথাও না কোথাও বৃষ্টির দেখা মিলবেই। আবহাওয়াবিদরা এমনই তথ্য দিয়েছেন।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ বলেন, এখন কালবৈশাখীর মৌসুম। তাই থেকে থেকে ঝড়বৃষ্টি হবেই। এবার কালবৈশাখী অন্য সময়ের চেয়ে কিছুটা বেশি হচ্ছে এবং হবে জানিয়ে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, সব বছর তো অবস্থা একরকম হয় না। গতকাল শুধু ঢাকায় নয়, দেশের অন্য অঞ্চলেও কালবৈশাখী আঘাত হেনেছে ও বৃষ্টি হয়েছে বলে জানান আবহাওয়াবিদরা।

গতকাল সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ঢাকায় ৫১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের বৃষ্টি পরিমাপক কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, বিকাল পর্যন্ত সীতাকুণ্ডে সর্বোচ্চ ৭০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

গতকাল থেকেই ঢাকার আকাশ মেঘলা ছিল, সকালে হালকা বৃষ্টির সঙ্গে একদফা ঝড় বয়ে যায়। দুপুরেও ভিজিয়েছে বৃষ্টি। এর পর ফের বিকালে মুষলধারায় বৃষ্টি ঝরে রাজধানীতে। ছিল ঝড়ের তাণ্ডবও। নগরীর অনেক স্থানে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতার।

আবহাওয়ার এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সাগরে লঘুচাপ চলছে। লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকা হয়ে উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। আর মৌসুমি লঘুচাপ অবস্থান করছে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা, ঢাকা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগ থাকবে দুর্যোগপূর্ণ। এসব অঞ্চলের ওপর দিয়ে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়- পাবনা, টাঙ্গাইল, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কুমিল্লা এবং নোয়াখালী অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০-৮০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর নৌ- হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া দেশের অন্য অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

প্রিয় পাঠক, আপনিও হতে পারেন আওয়ার বাংলা অনলাইনের একজন সক্রিয় অনলাইন প্রতিনিধি। আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া ঘটনা, অপরাধ, সংবাদ নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুনঃ [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :